12.2 C
London
April 14, 2024
TV3 BANGLA
আন্তর্জাতিকশীর্ষ খবর

জাতীয়তাবাদের কারণে ২০২৩’র আগে ভ্যাকসিন পাবে না বহু দেশ

ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদের কারণে দরিদ্র দেশগুলো ২০২৩ সাল পর্যন্ত করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন পাবে না, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হুশিয়ার করেছে।

 

ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদের প্রকোপ বেড়েই চলছে৷ কোনো দেশের সরকার যখন অন্য দেশকে সুযোগ না দিয়ে শুধুমাত্র নিজ দেশের জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করে তখন তাকে ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদ বলে।

 

এর সবচেয়ে খারাপ দিক হলো, বিশ্বের ধনী দেশগুলো নিজ দেশের মানুষের জীবন নিয়েই শুধু চিন্তা করে, অন্য দেশকে সাহায্য করা কিংবা মহামারির বিরুদ্ধে সম্মিলিতভাবে লড়াই করার কোনো মনোভাব তাদের মধ্যে থাকে না৷ ফলে বিশ্ববাসী দেখছে ধনী ও গরিব দেশগুলোর মধ্যে নতুন ধরনের বৈষম্য৷

 

বিশ্বের সব দেশকে ভ্যাকসিন নিয়ে স্বার্থপরতা পরিহার করতে হবে, বলেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেড্রোস অ্যাধনম ঘেব্রেইয়েসাস। ২৭ জানুয়ারি সংবাদমাধ্যম ইকনমিস্টে দেওয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, এটি কেবল মহামারিকে দীর্ঘায়িত করবে। বেশিরভাগ মধ্য-আয়ের দেশ ২০২২ সালের শেষের দিকে ভ্যাকসিন হাতে পাবে। এবং দরিদ্র দেশগুলো ২০২৩ সালের আগে এই ভ্যাকসিন পাবে না বলে সতর্ক করেন তিনি।

 

ভ্যাকসিন বাজারে আসার আগেই ধনী দেশগুলো প্রি অর্ডারের মাধ্যমে কোটি কোটি ডোজের প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছে৷ অক্সফামের তথ্যানুযায়ী, আমেরিকা, ব্রিটেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত কয়েকটি দেশ, অস্ট্রেলিয়া, হংকং, ম্যাকাও, জাপান, সুইজারল্যান্ড করোনা ভ্যাকসিনের অর্ধেকেরও বেশি ডোজ কেনার আগাম চুক্তি করে রেখেছে।

 

ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদ নতুন নয়। ধনীরা আগাম চুক্তির মাধ্যমে ভ্যাকসিন কিনে নেয়ায় ২০০৭ সালে ইন্দোনেশিয়া সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর একটি হওয়ার পরেও এইচ৫এন১ ইনফ্লুয়েঞ্জার (সোয়ান ফ্লু) ভ্যাকসিন কিনতে পারেনি৷ ২০০৯ সালে ধনী দেশগুলো এইচ১এন১ ইনফ্লুয়েঞ্জা ভ্যাকসিনের প্রায় সব ডোজ কিনে নেয়ায় বেশি আক্রান্ত দেশগুলো ভ্যাকসিন পায়নি৷

 

সূত্র: ইকনমিস্ট
৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১
এসএফ

আরো পড়ুন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়ে যুক্তরাজ্য সরকারে ফিরলেন ডেভিড ক্যামেরন

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ফ্লাইট বন্ধ করতে সংসদীয় কমিটি

ব্রিটিশ সরকারের ‘দুর্বল’ প্রতিক্রিয়া উগ্রবাদ বাড়াচ্ছে!