18.5 C
London
July 23, 2024
TV3 BANGLA
যুক্তরাজ্য (UK)শীর্ষ খবর

টেস্ট ছাড়া রোগীদের কেয়ার হোমে পাঠানো ‘বেআইনি’: হাইকোর্ট

কোভিড মহামারির শুরুতে ইংল্যান্ডে টেস্ট না করিয়ে রোগীদের হাসপাতাল থেকে কেয়ার হোমে ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে সরকারিনীতিগুলো হাইকোর্ট বেআইনি বলে রায় দিয়েছেন।

 

পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড দুই নারীকে নিয়ে যাওয়ার ঘটনার মামলায় এই রায় আসে। এই ঘটনায় ‘অত্যন্ত দুঃখজনক’ একাধিক মৃত্যুর অভিযোগ করেন ডা. ক্যাথি গার্ডনার এবং ফে হ্যারিস।

 

২০২০ সালের প্রথম দিকে কোভিড আক্রান্ত হলে, রোগীদের দ্রুত পরীক্ষা ছাড়াই কেয়ার হোমে ছেড়ে দেওয়া হয়। উপসর্গবিহীন সংক্রমণের ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও, সরকারি নথিতে দেখানো হয় যে এপ্রিলের মাঝামাঝি পর্যন্ত তাদের টেস্টের কোনও প্রয়োজন ছিল না।

 

ডা. গার্ডনার এবং হ্যারিস বলেছেন, বাসিন্দাদের সুরক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য বিভাগ ও স্বাস্থ্য সচিব।

 

আদালতের বাইরে ডা. গার্ডনার সাংবাদিকদের জানান, তিনি সব সময় বিশ্বাস করেছিলেন যে তার বাবা এবং কেয়ার হোমের অন্যান্য বাসিন্দাদের সরকার অবহেলা করেছে। হাইকোর্ট এখন সেই বিশ্বাসকে সত্যায়িত করেছে এবং সত্যটি প্রকাশ করার জন্য এই ক্যাম্পেইন।

 

লর্ড জাস্টিস বিন এবং মিস্টার জাস্টিস গার্নহাম তাদের রায়ে উল্লেখ করেন, ১৭ মার্চ, ১৯ মার্চ এবং ২ এপ্রিল ২০২০ তারিখে জারি করা নথিতে থাকা একাধিক নীতিমালা তৈরি এবং বজায় রাখার জন্য তৎকালীন স্বাস্থ্য সচিবের সিদ্ধান্তগুলো বেআইনি হিসেবে গণ্য করা হবে।

 

এই নীতিগুলো বয়স্ক এবং দুর্বল বাসিন্দাদের ঝুঁকি বিবেচনা করতে ব্যর্থ হয়েছিল, যা মার্চের প্রথম দিকে স্যার প্যাট্রিক ভ্যালেন্স একটি রেডিও সাক্ষাত্কারে হাইলাইট করেছিলেন। তিনি টুডে পোগ্রামে উপসর্গহীন সংক্রমণের বিষয়ে সতর্ক করেছিলেন।

 

ডাঃ গার্ডনারের প্রতিনিধিত্বকারী ব্যারিস্টার আদালতকে শুনানিতে বলেছিলেন, ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসে ২০২০ সালের মার্চ থেকে জুনের মধ্যে কোভিড থেকে ২০ হাজারেরও বেশি সংখ্যক বয়স্ক বা প্রতিবন্ধী কেয়ার হোমের বাসিন্দা মারা গেছেন।

 

২৮ এপ্রিল ২০২০
সূত্র: বিবিসি

আরো পড়ুন

ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে প্রথম বিদেশ সফরে ইউক্রেনে ক্যামেরন

যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে চমকপ্রদ রেল যাত্রাপথ, টিকেটের মূল্য ৩ পাউন্ড

নিউজ ডেস্ক

কঠিন নিয়মের বেড়াজালে আবদ্ধ “যুক্তরাজ্যে মাইগ্রেশন”