13.7 C
London
May 18, 2024
TV3 BANGLA
বাংলাদেশ

ধর্ষণের প্রতিবাদে অন্ধকারে নিমজ্জিত ফেসবুক

প্রতীকী ছবি

বিশেষ প্রতিনিধি:  সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে গেলেই অবাক হতে হচ্ছে। কারণ, অধিকাংশ মানুষের প্রোফাইলে দেখা যাচ্ছে কালো রঙের ছবি। ফেসবুকের দুনিয়া যেন এখন অন্ধকারে নিমজ্জিত।

যৌন নিপীড়ন, হয়রানি ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের অংশ হিসেবে অনেক নারী তাদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ছবি কালো করে দিয়েছেন। অনেক পুরুষ ব্যবহারকারীও এ কর্মসূচিতে যোগ দিতে দেখা গেছে।

সিলেটে লোমহর্ষক গণধর্ষণের রেশ কাটতে না কাটতেই নোয়াখালীতে এক নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও প্রকাশের পর ক্ষোভে ফুসছে বাংলাদেশ।

নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে নিজেদের প্রোফাইলে কালো রঙের ছবি রাখার আহ্বান জানিয়ে সোমবার ( ৫ অক্টোবর) থেকে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ইনবক্সে একটি বার্তা পাঠানো হয়। তাতে লেখা ছিল,

নারী ছাড়া বিশ্বকে কেমন দেখায় বোঝাতেই এই আন্দোলন। আপনার প্রোফাইল ছবি কালো করে দিন, যাতে পুরুষ চমকে ওঠে এই ভেবে যে নারীরা গেল কোথায়?

মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষিকা তানজিলা তোর্ষা টিভিথ্রিকে বলেন,

সবার প্রোফাইলে কালো ছবি দেয়ায়  ব্যপারটা বিভিন্ন নিউজ চ্যানেলে, পেইজে প্রকাশিত হচ্ছে। সরকারের দৃষ্টি একটু হলেও আকর্ষণ করা যাচ্ছে এভাবে। যে হ্যাশট্যাগগুলো (#) আমরা ব্যবহার করছি (#FemaleBlackout #HangTheRapist #Stop_Rape) তা ট্রেন্ডিং এ চলে আসলে আন্তর্জাতিক মিডিয়ারও নজরে পরবে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জান্নাত বলেন,

আমাদের সব যায়গাতেই নারী নির্যাতনের প্রতিবাদ করতে হবে। রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করলে যে মিডিয়াতে প্রতিবাদ জানানো যাবে না তা নয়। আমরা আমাদের প্রোফাইলে কালো ছবি দিয়েছি যাতে ফেসবুকের মাধ্যমেও এতে অংশ নেওয়া যায়।

এরকম প্রতিবাদের সঙ্গে আবার ভিন্নমত পোষণ করছেন অনেকে। এ নিয়েও ফেসবুকে চলছে বিতর্ক। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী ফারিয়া লোবা লিখেছেন, অপরাধ কি আমার? আমিতো উজ্জ্বলতর হতে চাই! আমাকে কেন অদৃশ্য হতে হবে! আমাকে কেন অন্ধকারে হারিয়ে যেতে হবে?

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক তানিয়া হক একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে বলেন, প্রতিবাদের ভাষা একেকজনের একেক রকম। কারও এতে সমর্থন থাকতে পারে, না-ও থাকতে পারে। নারী ব্ল্যাকআউটের পক্ষে বা বিপক্ষে যারা রয়েছেন, তাদের লক্ষ্য একটাই—নারী নির্যাতন বন্ধ হোক। তাই এমন শক্তিশালী আহ্বান প্রয়োজন, যেখানে কেউ বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকবে না। ধর্ষণের ঘটনায় ঘরে ঘরে মেয়েদের মধ্যে ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। এখন সবাইকে ধর্ষণসহ সব ধরনের নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সংহতি প্রকাশ করে জোরে আওয়াজ তুলতে হবে, সোচ্চার হতে হবে।

এদিকে দেশবাসীর আন্দোলনের চাপে ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, আগামী সোমবার (১২ অক্টোবর) মন্ত্রিসভায় এ প্রস্তাব উত্থাপন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

৯ অক্টোবর ২০২০
সানজানা ফারিহা, টিভিথ্রি বাংলা
এসএফ / এনএইচ

আরো পড়ুন

বাংলাদেশিদের টার্গেট করে অনলাইনে জুয়া, আটক ১২

হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ‘ছনের ঘর’

নিউজ ডেস্ক

ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল সিলেটের কানাইঘাটে