1. robin.nasif@live.com : নিউজ ডেস্ক :
  2. farjulcreative@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : Farjul Islam
  3. mh2mukul@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : M Moinul Hossain
  4. nh.tiash@gmail.com : Nawshad Tiash : Nawshad Tiash
বিতর্কিত লেখক সালমান রুশদির ওপর হামলা TV3 BANGLA
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিতর্কিত লেখক সালমান রুশদির ওপর হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২
  • ১৫১

বিতর্কিত উপন্যাস ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’-এর রচয়িতা ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক সালমান রুশদির ওপর হামলা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে এক মঞ্চে বক্তব্য দেওয়ার সময় তার ওপর এ হামলা হয়।

 

শুক্রবার (১২ আগস্ট) যখন শিটোকোয়া ইনস্টিটিউশনে একটি বক্তৃতার জন্য তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার সময় একজন মঞ্চে উঠে এই হামলা করেন।

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, তারা এক ব্যক্তিকে দৌড়ে মঞ্চের দিকে যেতে দেখেন এবং সালমান রুশদিকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার সময় তিনি তাকে হয় ঘুষি মারেন, নয়তো ছুরিকাঘাত করেন। ঘটনার পরপরই সালমান রুশদিকে হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

 

অনলাইনে পোস্ট করা এক ভিডিওতে দেখা যায়, এসময় কিছু দর্শক দ্রুত মঞ্চের দিকে ছুটে যাচ্ছেন। সেখানে উপস্থিত লোকজন হামলাকারীকে থামাতে সক্ষম হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে রুশদির প্রকৃত অবস্থা কেমন তা জানা যায়নি।

 

ঘটনার পর দ্রুত গোটা মিলনায়তন খালি করে দেওয়া হয়েছে। নিউইয়র্কের পুলিশ জানিয়েছে হামলাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি পুলিশ হেফাজতে আছেন।

 

 

একজন প্রত্যক্ষদর্শী কার্ল লেভান বিবিসিকে বলেন, এটি প্রত্যক্ষ করা খুবই ভয়ংকর ছিল। তিনি ঘটনার সময় অ্যাম্পিথিয়েটারের ১৪ বা ১৫তম সারির আসনে ছিলেন। হামলাকারী দর্শক সারির বাঁ দিক থেকে মঞ্চে গিয়ে রুশদিকে একের পর এক ছুরিকাঘাত করতে থাকেন।

 

স্থানীয় সাংবাদিক বাফেলো নিউজের মার্ক সোমার বেশ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি বিবিসি নিউজ চ্যানেলকে বলেন, হামলাকারীর মুখে কালো মাস্ক ছিল। তিনি দর্শকদের মধ্য থেকে বেরিয়ে মঞ্চে ঝাঁপিয়ে পড়েন এবং রুশদির ওপর হামলা শুরু করেন।

 

সালমান রুশদি একজন ব্রিটিশ-ভারতীয় ঔপন্যাসিক ও প্রাবন্ধিক। তার দ্বিতীয় উপন্যাস মিডনাইটস চিলড্রেন ১৯৮১ সালে ম্যান বুকার পুরস্কার পায়। তার লেখার অনেকটা অংশ জুড়েই থাকে ভারতীয় উপমহাদেশ। বলা হয়ে থাকে যে তিনি জাদু বাস্তবতার সঙ্গে ঐতিহাসিক কল্পকাহিনী একত্রিত করে লেখেন। পূর্ব ও পশ্চিমের মধ্যে অসংখ্য সংযোগ, বিচ্ছিন্নতা ও অভিপ্রয়াণ তার লেখার অন্যতম বিষয়বস্তু।

১৯৮৮ সালে প্রকাশিত তার চতুর্থ উপন্যাস দ্য স্যাটানিক ভার্সেস বিশ্বব্যাপী একটি বড় আকারের বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছিল। বইটি প্রকাশের পর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলিমরা এর প্রতিবাদ জানায়।

 

 

১৩ আগস্ট ২০২২

সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

আরও পড়ুন...

ফেসবুকে আমরা…

আর্কাইভ