12.6 C
London
May 18, 2024
TV3 BANGLA
যুক্তরাজ্য (UK)শীর্ষ খবর

ক্রিসমাসের সময় ব্রিটেনের ‘টিয়ার-৪’ এলাকায় যা যা মানতে হবে

ক্রিসমাসের মাত্র ৫ দিন বাকি থাকতে যুক্তরাজ্যের নাগরিকদের উৎসব আনন্দ মাটি হয়ে গেলো। করোনা ভাইরাসের সংক্রমন বৃদ্ধি পাওয়ায় ‘টিয়ার ৪’ বা লকডাউন সমতুল্য বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে বিভিন্ন এলাকায়।

 

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন যুক্তরাজ্যে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন বৃদ্ধি পেতে থাকায় লন্ডনসহ দক্ষিন পূর্ব অংশে ‘টিয়ার ৪’ বা লকডাউন সমতুল্য বিধিনিষেধ ঘোষণা করেছেন। এসব অঞ্চলে রোববার (২০ ডিসেম্বর) থেকে এই নিয়ম কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

 

এর ফলে কয়েক মিলিয়ন মানুষ বিধিনিষেধের আওতায় পড়বেন। বাতিল করা হয়েছে ক্রিসমাস উৎসব। করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় এ সিন্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানান তিনি।

 

নতুন টিয়ার ৪ এর নিয়ম অনুসারে, নিজের স্তর থেকে উচ্চ স্তরে ভ্রমণ করতে পারবেন না নগরবাসী। পরিবারের মিশ্রণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অন্য এলাকায় কেবল ২৫ শে ডিসেম্বরই অর্থাৎ ক্রিসমাসের দিন অন্য পরিবারের সাথে দেখা করবার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

 

রোববার সকাল থেকে লন্ডন, সাউথ ইস্ট ইংল্যান্ড এবং ইস্ট অফ ইংল্যান্ডে ‘টিয়ার ৪’ এর নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসবে। এই নিষেধাজ্ঞাগুলো লকডাউনের বিধিনিষেধের সমতুল্য হবে।

 

এই সব এলাকার মানুষদের অবশ্যই সীমিত ছাড় ছাড়া বাড়িতে থাকতে হবে। অত্যাবশকীয় নয় এমন পণ্য সামগ্রী বিক্রিকারী দোকান এবং ইনডোর জিম বন্ধ থাকবে। লোকদের সম্ভব হলে বাসা থেকে কাজ করতে হবে। ‘টিয়ার ৪’ অঞ্চলগুলোতে অন্য স্তরের বা টিয়ারের মানুষদের প্রবেশ করা চলবে না। তবে মসজিদসহ এবং অন্য উপাসনালয় খোলা থাকবে।

 

এই বিধিনিষেধ দুই সপ্তাহ চলবে এবং ৩০ ডিসেম্বর পরবর্তী সিধান্ত নেয়া হবে। টিয়ার ৪ লকডাউন চলাকালীন সবার জন্য স্টে হোম অর্ডার জারি থাকবে।

 

ক্রিসমাসে বাসার বাইরে কোনো উৎসব বা সমাবেশ করা যাবেনা বলে জানিয়েছেন বরিস জনসন। পারিবারিকভাবে দিনটি উৎযাপন করার কথা বলেছেন তিনি। এছাড়া থার্টি ফার্স্ট নাইটেও বিধিনিষেধ জারি থাকবে।

 

বরিস জনসন বলেন, আমি জানি ক্রিসমাসে সবাই কত আগ্রহ নিয়ে বসে থাকে পরিবার পরিজন নিয়ে উৎসব করার জন্য। এদিনটি নষ্ট হয়ে যাওয়া কতখানি হতাশ হবেন তারা তাও জানি কিন্তু আমাদেরকে এখন অবশ্যই বাস্তববাদি চিন্তা করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমার কাছে আর কোনো বিকল্প নেই। এবারের ক্রিসমাসে যদি আমরা ধৈর্য্যের পরিচয় দেই তাহলে ভবিষ্যতের ক্রিসমাস আমাদের আরো মধুর হবে।

 

সংবাদ সম্মেলনের আগে প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রী পরিষদ সদস্যদের সাথে বৈঠক করেন। পরে শনিবার টেলিভিশনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এই ঘোষণা দেন।

 

সূত্র: ইন্ডিপেন্ডেন্ট
২০ ডিসেম্বর ২০২০
এসএফ

আরো পড়ুন

লিবিয়া উপকূলে ১৩০ অভিবাসী নিয়ে নৌকাডুবি

যেসব কারণে রোজা ভঙ্গ হয়

অনলাইন ডেস্ক

আয়ারল্যান্ড সকল অবৈধ অভিবাসী ফেরত পাঠাবে ইউকেতে