1. robin.nasif@live.com : নিউজ ডেস্ক :
  2. farjulcreative@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : Farjul Islam
  3. mh2mukul@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : M Moinul Hossain
  4. nh.tiash@gmail.com : Nawshad Tiash : Nawshad Tiash
চীনা মুদ্রা ইউয়ানে লেনদেন করে ডলার সংকট কাটাতে চায় বাংলাদেশ TV3 BANGLA
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

চীনা মুদ্রা ইউয়ানে লেনদেন করে ডলার সংকট কাটাতে চায় বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক
  • শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮৭

অব্যাহত ডলার সংকটের মুখে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলোকে চীনের মুদ্রা ইউয়ানে অ্যাকাউন্ট খোলার অনুমোদন দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে। সার্কুলারে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোর অথরাইজড ডিলার শাখা চীনের সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের সাথে ইউয়ান মুদ্রায় ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে।

 

চীন হচ্ছে বাংলাদেশের শীর্ষ আমদানিকারক দেশ। বাংলাদেশ প্রতিবছর চীন থেকে আমদানি করে ১৪ থেকে ১৫ বিলিয়ন ডলারের মতো। কিন্তু এর বিপরীতে বাংলাদেশে এখনও চীনে এক বিলিয়ন ডলারে পৌঁছাতে পারেনি।

 

সাবেক ব্যাংকার এবং পর্যবেক্ষক নুরুল আমিন বলেন, ইউয়ান হচ্ছে এমন এটি মুদ্রা যেটি বাংলাদেশ এবং চীন পরস্পরের সাথে বাণিজ্যের জন্য ব্যবহার করতে পারে। ইউয়ান মুদ্রায় চীনের সাথে লেনদেনের অর্থ হচ্ছে, ডলার সংকটকে এ্যাভয়েড (পাশ কাটিয়ে) করে আপনি লেনদেন করতে পারবেন, যেটা দুটো দেশ গ্রহণ করবে।

 

তবে চাইলেই ইউয়ানের মাধ্যমে দ্রুত লেনদেন করা যাবে কিনা সেটি নিয়ে সংশয় আছে। এর একটি বড় কারণ হচ্ছে, ইউয়ানের দাম কিভাবে নির্ধারিত হবে।

 

বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রা আসে রপ্তানি এবং রেমিটেন্স থেকে। দুটোই আসে ডলারে। তাছাড়া চীনে যেহেতু বাংলাদেশের রপ্তানি ১ বিলিয়ন ডলারেরও কম সেহেতু ইউয়ানের যোগান বেশি থাকবে না।

 

নুরুল আমিন বলেন, আমাদের যদি এক্সপোর্ট বেশি হতো তাহলে ইউয়ান বেশি জমা থাকতো। তবে চীনের মাধ্যমে কারেন্সি কনভার্সের মাধ্যমে লেনদেন করা সম্ভব।

 

চীন এখন পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম শক্তিশালী অর্থনীতি। তাদের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিও বেশ ভালো। এবং তাদের সাথে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের শক্তিশালী বাণিজ্যিক সম্পর্ক আছে।

 

তবে ইউয়ানে লেনদেন করার ক্ষেত্রে বিষয়টি খুব একটা সহজ হবে বলে মনে করেন না বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। তাদের প্রশ্ন হচ্ছে, চীনে রপ্তানি বেশি না করলে ব্যাংকগুলোর কাছে ইউয়ান কতটা থাকবে?

 

বাংলাদেশের একজন শীর্ষ স্থানীয় নিটওয়্যার রপ্তানিকারক এবং বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফেকচারার্স এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ফজলুল হক বলেন, চীনের সাথে ইউয়ানে বাণিজ্য করতে ভালো। কারণ, চীনও ইউয়ানে লেনদেন করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। তবে বিষয়টি কার্যকরীভাবে করা যাবে কি না সেটি নিয়ে সন্দেহ আছে।

 

তিনি বলেন, চীনের সাথে পুরো লেনদেন হয়তো ইউয়ানে করা যাবে না, তবে আংশিক হয়তো করা যেতে পারে। তাতে ডলারের উপর কিছুটা চাপ কমতে পারে। ব্যাংকগুলোর কাছে ইউয়ান কতটা আছে সেটা একটা বিষয়। আমরা তো চীনে খুব বেশি এক্সপোর্ট করি না। ব্যাংকগুলোর কাছে যদি পর্যাপ্ত ইউয়ান না থাকে তাহলে ডলার দিয়েই ইউয়ান কিনতে হবে।

 

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
সূত্র: বিবিসি বাংলা

Leave a Reply

আরও পড়ুন...

ফেসবুকে আমরা…

আর্কাইভ