1. robin.nasif@live.com : নিউজ ডেস্ক :
  2. sanjanafariha@gmail.com : Fariha : Sanjana Fariha
  3. farjulcreative@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : Farjul Islam
  4. mh2mukul@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : M Moinul Hossain
  5. nh.tiash@gmail.com : Nawshad Tiash : Nawshad Tiash
নারী সেজে পুরুষকে বিয়ে! TV3 BANGLA
শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৮:০১ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর
বাবা দিবসে জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা নিবেদন করে গাইবেন গৌরি চৌধুরী মার্কিন টেক জায়ান্টদের আধিপত্য কমাতে ফেডারেল ট্রেড কমিশনের নতুন প্রধান লিনা খান হাসপাতালের বেড বাসায় নেওয়ার সময় জনতার হাতে আটক চিকিৎসক যুক্তরাজ্যের তহবিল কমানোর সিদ্ধান্ত ‘বিপর্যয়কর’: ব্র্যাক যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে গাজায় আবারও ইসরাইলের বিমান হামলা সিলেটে মা ও দুই শিশুকে গলা কেটে হত্যা দেশে জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনার ভ্যাকসিন অনুমোদন আইসিসে যোগদানের সময় ‘বোকা শিশু’ ছিলাম: শামীমা বেগম ব্রিটিশ অর্থমন্ত্রীর শ্বশুরের বিরুদ্ধে সাড়ে ৫ মিলিয়ন পাউন্ড কর ফাঁকির অভিযোগ যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার নতুন বাণিজ্য চুক্তি

নারী সেজে পুরুষকে বিয়ে!

নিউজ ডেস্ক
  • বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২১
  • ১১৪

টাঙ্গাইলের সখীপুরে কবিরাজ পরিচয়ধারী এক ব্যক্তি নিজে নারী সেজে এক যুবককে বিয়ে করেছেন বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় এলাকায় তুলকালাম সৃষ্টি হয়েছে। পরে স্থানীয়রা তাকে গণধোলাই দিয়ে এলাকাছাড়া করে।

 

বুধবার (১৪ এপ্রিল) সখীপুরের দাড়িয়াপুর ফালু চাঁনের মাজারপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

 

স্থানীয়রা জানান, প্রায় তিন মাস আগে ঘাটাইল উপজেলার জামুরিয়া গ্রামের আবদুল কাদেরের ছেলে আলতাফ আলী (৩৫) নিজেকে কবিরাজ পরিচয় দিয়ে দাড়িয়াপুর মাজারপাড় এলাকায় আসেন। ওই কবিরাজ মাঝেমধ্যে শাড়ি পরেও এলাকায় ঘোরাফেরা করতেন। তিনি সন্তানহীন নারীদের সন্তান দানের ঝাড়ফুঁক দেওয়ার কথা বলে বিভিন্ন বাড়িতে গত তিন মাস ধরে অবস্থান করছেন। এর মধ্যে ওই এলাকার কৃষক রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে জুবায়ের হোসেনের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়। জুবায়ের ও তার পরিবারকে কবিরাজ আলতাফ আলী টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বলেন- ‘আমি রাত ১২টার পর মেয়ে মানুষে রূপান্তরিত হব, আমাকে বিয়ে করলে প্রচুর সম্পত্তির মালিক হবেন।’

 

পরে গত ১৩ এপ্রিল রাতে জুবায়ের ও কবিরাজ আলতাফের সম্মতিতেই তাদের বিয়ের প্রস্তুতি চলে। এতে লোভে পড়ে জুবায়েরের পরিবারেরও সম্মতি ছিল বলে জানা গেছে। বুধবার সকালে এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে ওই কবিরাজকে ধরে এনে পরনের শাড়ি-ব্লাউজ খুলে গণধোলাই দেয়। পরে দাড়িয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনসার আলী আসিফ, সাবেক চেয়ারম্যান শাইফুল ইসলাম শামীম, সানোয়ার হোসেন মাস্টার ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই কবিরাজকে উদ্ধার করেন।

 

স্থানীয়রা দাবি করেন, দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের কাজী মাসুদ রানা এক লাখ টাকা দেনমোহরে তাদের বিয়ে পড়িয়েছেন।

 

কাজী মাসুদ রানা বলেন, ‘একটি বিয়ের রেজিস্ট্রি করতে হবে বলে আমাকে ওই এলাকায় যেতে বলা হয়েছিল। ওই বাড়িতে গিয়ে মেয়ের (পাত্রীর) জাতীয় পরিচয়পত্র দিতে বলি। পরিচয়পত্র দিতে না পারায় আমি সঙ্গে সঙ্গে ফিরে এসেছি। রেজিস্ট্রি বা বিয়ে পড়ানোর তো কোনো প্রশ্নই ওঠে না। কিছু লোক আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক প্রচারণা চালাচ্ছে।’

 

সখীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ওসমান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছার পর স্থানীয়রা ওই কবিরাজকে হিজরা দাবি করেন। পরে স্থানীয়দের অনুরোধেই তাকে ওই এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

কবিরাজ আলতাফের পরিবারের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ভাতিজা ইয়ামিন ফোন ধরেন। তিনি জানান, আমার চাচা আলতাফ আলী আমাদের এলাকায়ও (ঘাটাইল) কবিরাজি করত। কিন্তু সে একটি ছেলেকে বিয়ে করবে এটা মেনে নিতে পারছি না।

 

১৫ এপ্রিল ২০২১
সূত্র: কালের কণ্ঠ

 

 

 

 

 

Leave a Reply

আরও পড়ুন...

ফেসবুকে আমরা…

আর্কাইভ