1. robin.nasif@live.com : নিউজ ডেস্ক :
  2. farjulcreative@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : Farjul Islam
  3. mh2mukul@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : M Moinul Hossain
  4. nh.tiash@gmail.com : Nawshad Tiash : Nawshad Tiash
১০টি কারণে ব্রিটিশদের জীবনযাত্রা ভয়াবহ হয়ে উঠবে অক্টোবরে! TV3 BANGLA
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

১০টি কারণে ব্রিটিশদের জীবনযাত্রা ভয়াবহ হয়ে উঠবে অক্টোবরে!

রোকসানা রশীদ
  • শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২
  • ১৮৯৭

জীবনযাত্রার খরচের সঙ্কট সারাদেশে পরিবারের অর্থব্যবস্থাকে ক্রমাগত ক্ষতিগ্রস্ত করে চলেছে। আসছে অক্টোবর মাসকে অর্থনীতির ভবিষ্যৎবক্তারা চূড়ান্ত দুর্দশার মাস হিসেবে আখ্যায়িত করে এর নাম দিয়েছে ‘শকটোবর’। ব্রিটিশরা ইতোমধ্যেই ৪০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে দ্রুত মূল্যবৃদ্ধির সম্মুখীন হয়েছে কিন্তু আরও বিল বৃদ্ধির অপেক্ষায় রয়েছে। ফলে একের পর এক ‘শক’ তাদের জন্য অপেক্ষা করছে এই অক্টোবরে।

 

ব্যাংক অব ইংল্যান্ডও সতর্ক করেছে যুক্তরাজ্য এই বছরের শেষে মন্দার দিকে যাচ্ছে। ভোক্তা অধিকার বিশেষজ্ঞ মার্টিন জেমস বলেছেন: সাম্প্রতিক সময়ে দেশের অর্থনীতির জন্য সবচেয়ে খারাপ মাসগুলির মধ্যে একটি হতে যাচ্ছে অক্টোবর, ক্রমবর্ধমান ব্যয় এবং জীবনযাত্রার ব্যয়-বিশৃঙ্খলার কারণে চারদিকে মানুষ হিমশিম খাচ্ছে।

 

১০টি কারণ উল্লেখ করা হয়েছে যার ফলে আগামী অক্টোবরে জীবনযাত্রা সংকট্ময় হয়ে উঠতে যাচ্ছে ব্রিটিশদের:

 

১. অক্টোবরের প্রথম দিন থেকে এনার্জি প্রাইস ক্যাপ বাড়বে। প্রাইস ক্যাপ বর্তমানে ১৯৭১ পাউন্ডে সেট করা হয়েছে। ২৬ আগস্ট একটি ঘোষণা আসবে এর মূল্যবৃদ্ধি সম্পর্কে।

 

২. প্রাইস ক্যাপ শেষবার এপ্রিলে সামঞ্জস্য করা হয়েছিল, যখন ব্রিটেনে উষ্ণ আবহাওয়া ছিল ফলে কম এনার্জি খরচ হয়েছে। ইংল্যান্ডে অক্টোবরের গড় তাপমাত্রা ১১.৮° সেলসিয়াস। ফলে এনার্জি খরচ বাড়বে।

 

৩. বেশিরভাগ ব্রিটিশ প্রতি বছর অক্টোবরে তাদের হিটিং সিস্টেমের তারিখ পরিবর্তন করে। কিন্তু যে মুহূর্ত হিটিং চালু হবে, বিল বাড়তে শুরু করবে – তাই পরিবারগুলিকে যতদিন সম্ভব এটি বন্ধ রাখার জন্য অনুরোধ করা হবে। মার্টিন লুইসসহ অর্থ বিশেষজ্ঞরা বাড়ির হিটিং সিস্টেমের পরিবর্তে ‘গরম’ করার জন্য গরম কাপড় পরা এবং গরম পানির বোতল ইত্যাদি ব্যবহারের অনুরোধ করেছেন।

৪. মুদ্রাস্ফীতি ১৩%-এ উঠে যাওয়ার আশংকা করছে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড। এদিকে মুদ্রাস্ফীতি সুদের হার বাড়িয়ে দিচ্ছে।

 

৫. ব্যাংক অব ইংল্যান্ড সতর্ক করেছে যে যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি এই বছরের শেষে এবং ২০২৩ সালের মধ্যে মন্দার মধ্যে পড়তে পারে। ২০২২ সালের শেষ তিন মাসে অর্থনীতি সঙ্কুচিত হওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে – তাই অক্টোবর, নভেম্বর এবং ডিসেম্বর মন্দার মৌসুম হতে যাচ্ছে।

 

৬. চ্যান্সেলর অব দ্য এক্সচেকার সাধারণত অক্টোবর বা নভেম্বরে তার বাজেট প্রদান করেন। যদিও এখনও কোনো নির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা করা হয়নি। জ্বালানি বিল নিয়ে ক্রমবর্ধমান আশঙ্কার পরে জীবনযাত্রার সংকটের জন্য আরও একটি প্যাকেজ সরবরাহ করার জন্য সরকার এবং নাদিম জাহাউইয়ের দিকে সকলের দৃষ্টি রয়েছে।

 

প্রাক্তন চ্যান্সেলর ঋষি সুনাক নিশ্চিত করেছেন যে প্রতিটি পরিবার তাদের বিদ্যুৎ বিল থেকে ৪০০ পাউন্ড ছাড় পাবেন, তবে মে মাস থেকে সরকার জীবনযাত্রার খরচ সহায়তার বিষয়ে কিছু আপডেট জানায়নি।

ইউটিলিটি কর্তাদের সাথে সংকট নিয়ে আলোচনা করেছেন মন্ত্রীরা – তবে সমর্থনের কোনও নতুন ব্যবস্থা এখনও ঘোষণা করা হয়নি।

 

৭. ঘড়িগুলো অক্টোবরে আগের অবস্থায় ফিরে যাবে, যার অর্থ দিনগুলি ছোট এবং অন্ধকার হয়ে আসছে  এবং এটি অনেক মানুষের জন্য একটি বাস্তব সংগ্রাম হতে পারে।

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, শরৎকালে ঘড়ির কাঁটা পরিবর্তনের পর বিষণ্নতার সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়ে যায়।

 

৮. অক্টোবরের বড়সড় অর্থনৈতিক ধকলের মাত্র দুই মাস পরেই ডিসেম্বর ক্রিসমাস উৎসবের মৌসুম। উৎসবের অতিরিক্ত ব্যয় বহনের ক্ষেত্রে বাজেট নির্ধারণ নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়বে বেশিরভাগ পরিবার।

 

৯. যুক্তরাজ্যের বেশিরভাগ স্কুল অক্টোবরে দুই সপ্তাহের জন্য বিরতি দেবে। যখন স্কুলের বিরতি শুরু হয়, তখন বাবা-মাকে তাদের বাচ্চাদের জন্য খাবারের পাশাপাশি অন্যান্য ক্রিয়াকলাপ এবং সাধারণ বিনোদনের দিকে আরও বেশি মনোযোগ দিতে হবে। ফলে খরচ বাড়বে, সাথে বাড়বে মানসিক চাপ।

 

১০. ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণ করার পর থেকে অক্টোবর মাস হবে আট মাস। সংঘাত শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী গ্যাসের দাম বেড়েছে এবং তা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাশিয়া ধীরে ধীরে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সরবরাহ বন্ধ করে দিচ্ছে।

যুক্তরাজ্যে, গ্যাসের দাম ২০২১ থেকে তিনগুণ বেড়েছে এবং এই বছরের শুরু থেকে আবার দ্বিগুণ হয়েছে। অক্টোবরে সামগ্রিক পরিস্থিতি আরো বিগড়ে যাবে বলে ধরে নেয়া হচ্ছে।

 

১৩ আগস্ট ২০২২
এনএইচ

Leave a Reply

আরও পড়ুন...

ফেসবুকে আমরা…

আর্কাইভ